সূর্যের তাপে নয়, ছবির রেললাইনটি বেঁকেছে ভূমিকম্পের কারণে

কপিরাইট এএফপি ২০১৭-২০২২। সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত।

একটি ছবি ফেসবুকে শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে এটি প্রচণ্ড সূর্যের তাপে বেঁকে যাওয়া রেললাইনের ছবি। দাবিটি অসত্য। ছবিটি মূলত ২০১০ সালে নিউজিল্যান্ডে সংঘটিত এক ভূমিকম্পের প্রভাবে বেঁকে যাওয়া রেললাইনের। নিউজিল্যান্ডের রাষ্ট্রায়ত্ত রেলওয়ের একজন মুখপাত্রও ছবিটি ক্যান্টারবেরি ভূমিকম্পের পর তোলা বলে নিশ্চিত করেছেন।

ছবিটি গত ৬ অক্টোবর ফেসবুকে এখানে শেয়ার করা হয়।

পোস্টটির বাংলা ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “প্রচন্ড রোদের তাপে বেকে যাওয়া একটি রেললাইন।”

ছবিটি একইরকম দাবি সহকারে ফেসবুকে এখানে এখানে শেয়ার করা হয়।

তবে দাবিটি অসত্য।

গুগল রিভার্স ইমেজ সার্চে ছবিটি বৃটিশ ট্যাবলওয়েড দ্য সান এর ২০১৮ সালের ৬ জুনের একটি প্রতিবেদনে পাওয়া যায়।

ছবিটির ক্যাপশনে লেখা রয়েছে: “বেঁকে যাওয়া এই রেল লাইনটি ভূমিকম্পের ফলে সৃষ্টি হয়েছে, এটি কোন ফটোশপ নয়।”

নীচে বিভ্রান্তিকর পোস্টের ছবি (বামে) এবং দ্য সানে প্রকাশিত ছবির (ডানে) একটি তুলনামূলক স্ক্রিনশট দেওয়া হলো:

গুগল কিওয়ার্ড সার্চে দেখা যায় একই ছবি দ্য আমেরিকান জিওফিজিকাল ইউনিয়ন নামে একটি আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান পরিষদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়।

ছবিটি কিউইরেল এর ম্যালকম টিসডেল এর সৌজন্যে প্রকাশ করা হয়।

কিউইরেল হলো নিউজিল্যান্ডের রাষ্ট্র পরিচালিত রেল পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান।

কিউইরেল এর সিনিয়র কমিউনিকেশন অ্যাডভাইসর সাইমন কিলরয় এএফপিকে বলেন, “এই ছবিটি কিউইরেল এর ম্যালকম টিসডেল এর তোলা। ২০১০ সালের ক্যান্টারবেরি ভূমিকম্পের পর ছবিটি তোলা হয়।”

২০১০ সালের ৪ সেপ্টেম্বর নিউজিল্যান্ডের ক্যান্টারবেরি অঞ্চলে ৭.১ মাত্রার এক ভূমিকম্প সংঘটিত হয়। ভূমিকম্পে কোন প্রাণহানি না ঘটলেও হাজারো মানুষ ঘরছাড়া হন এবং ঘরবাড়ি পুনরায় নির্মাণ করতে হয়।