২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ তারিখে নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের ৭৭তম সাধারণ অধিবেশনে ভাষণ দিচ্ছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ( AFP / YUKI IWAMURA)

জাতিসংঘ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে 'বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা প্রধানমন্ত্রী' ঘোষণা করেনি

কপিরাইট এএফপি ২০১৭-২০২২। সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত।

বাংলাদেশে ব্যাপকভাবে ছড়ানো ফেসবুক পোস্টে দাবি করা হয়েছে যে, জাতিসংঘ কর্তৃক বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে 'বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা প্রধানমন্ত্রী' ঘোষণা করা হয়েছে। দাবিটি অসত্য। জাতিসংঘের মুখপাত্র জানিয়েছেন সংস্থাটি এ ধরনের কোন পুরস্কার প্রদান করে না। এছাড়া এমন পুরস্কার প্রদানের ঘোষণা সম্বলিত কোন আনুষ্ঠানিক প্রতিবেদন ২০২২ সালের ১৬ অক্টোবর পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।

গত ২৩ সেপ্টেম্বর এই ফেসবুক পোস্টে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একটি ছবি সহকারে দাবিটি শেয়ার করা হয়।

পোস্টটি করা হয়েছে বাংলাদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এমপির নামে আনভেরিফায়েড একটি ফেসবুক পেইজ থেকে। অবশ্য এই পেইজটির পোস্ট নিয়মিত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজ থেকে শেয়ার করা হয়।

জাহিদ মালেকের পোস্টে লেখা হয়েছে: "অভিনন্দন! জাতিসংঘ কর্তৃক ঘোষিত বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা প্রধানমন্ত্রী, কোটি মানুষের প্রাণপ্রিয় নেতা, সফল রাষ্ট্রনায়ক ও আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।"

স্ক্রিনশটটি গত ১৪ অক্টোবর ২০২২ তারিখে নেয়া

একই রকম দাবি একই দিন বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা বাসস এর এই প্রতিবেদনে প্রকাশ করা হয়।

বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর ঊশৈসিংকে উদ্ধৃত করে বাসস এর প্রতিবেদনে বলা হয়: "জাতিসংঘের ঘোষণা অনুযায়ী বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে, এটা জাতির জন্য অনেক বড় প্রাপ্তি।"

এছাড়া গত ৬ অক্টোবর দৈনিক যায়যায়দিনের এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে: "মানিকগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ও যুব-ক্রীড়া ও পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় সংসদীয় কমিটির সদস্য এবং জাতীয় ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক আলহাজ্ব এ.এম নাঈমুর রহমান দুর্জয় বলেছেন, "জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বের সেরা দ্বিতীয় প্রধানমন্ত্রী। ইতিমধ্যে জাতিসংঘ কর্তৃক ঘোষণা দিয়েছেন।"

দাবিটি ফেসবুকে আরও বিভিন্ন পোস্টে-- যেমন এখানে, এখানে এখানে শেয়ার করা হয়েছে।

গত ২৩ সেপ্টেম্বর শেখ হাসিনা জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে ভাষণ দেয়ার পর দাবিটি অনলাইনে ছড়ায়। সাধারণ অধিবেশনের ভাষণে হাসিনা বাংলাদেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকটি ইস্যুতে কথা বলেন যার মধ্যে রয়েছে রোহিঙ্গা সঙ্কট এবং রাশিয়া কর্তৃক ইউক্রেনের বিভিন্ন অঞ্চল 'অবৈধভাবে' দখলের নিন্দা করে জাতিসংঘের রেজুলেশনে ক্রেমলিনের বিপক্ষে ভোটা দেয়ার বিষয়টি।

তবে এই দাবিটি অসত্য।

২০২২ সালের ১৬ অক্টোবর পর্যন্ত জাতিসংঘ কর্তৃক শেখ হাসিনাকে 'বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা প্রধানমন্ত্রী' ঘোষণা সংক্রান্ত কোন আনুষ্ঠানিক প্রতিবেদন পাওয়া যায়নি।

জাতিসংঘ মহাসচিবের মুখপাত্র স্টেফানে দুজারিক এএফপিকে বলেছেন, "জাতিসংঘের পক্ষ থেকে এমন কোন পুরস্কার বা অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয় না।"

পুরনো ভুয়া খবর

একই ধরনের ভুয়া খবর ২০১৮ সাল থেকে থেকে বিভিন্ন সময়ে অনলাইনে ছড়িয়েছে।

২০১৮ সালের মার্চ মাসে বাংলাদেশের মূলধারার কিছু সংবাদমাধ্যম-- যার মধ্যে রয়েছে আরটিভি এবং ঢাকা ট্রিবিউন-- খবর প্রকাশ করে যে, 'বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা প্রধানমন্ত্রী' নির্বাচিত হওয়ায় হাসিনাকে তার মন্ত্রিসভা অভিনন্দন জানিয়েছে।

আরটিভির ২০১৮ সালের ১৯ মার্চের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে: "সিঙ্গাপুর ভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান 'স্ট্যাটিস্টিক্স ইন্টারন্যাশনাল' শেখ হাসিনাকে বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করেছে।"

এছাড়াও অন্যান্য সংবাদমাধ্যমে তখন শেখ হাসিনাকে মন্ত্রিসভার অভিনন্দন জানানো সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয় এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এখানে

যদিও এই দাবিটি পরে স্থানীয় একাধিক ফ্যাক্ট চেকিং সংস্থা এবং বিবিসি বাংলা ভুয়া বলে খণ্ডন করে।

২০১৮ সালের নভেম্বরে বিবিসি বাংলার প্রতিবেদনে জানানো হয় যে, সংবাদমাধ্যমটি "The Statistics International" এর কোন ওয়েবসাইট খুঁজে পায়নি।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়: "কিন্তু 'দ্য স্ট্যাটিস্টিক ইন্টারন্যাশনাল' নামের কোন সংস্থার অস্তিত্ব ইন্টারনেটে গুগল সার্চের মাধ্যমে আসেনি। বর্তমান সময়ে সাধারণত যে কোন সংস্থার একটি ওয়েবসাইট থাকা খুবই স্বাভাবিক বিষয়। তাছাড়া যে প্রতিষ্ঠান সরকার প্রধানদের নিয়ে জরিপ করে, তাদের একটি ওয়েবসাইট না থাকাটি খুবই অস্বাভাবিক।"

গুগলে কীওয়ার্ড সার্চ করে বিশ্বব্যাপী রাজনৈতিক নেতাদের রেটিং নিয়ে সাম্প্রতিক বিভিন্ন জরিপের-- বিশ্ব নেতাদের জনপ্রিয়তার খবরাখবর পর্যবেক্ষণ করা মার্কিন প্রতিষ্ঠান মর্নিং কনসাল্টের এই জরিপসহ-- কোনটিতে শেখ হাসিনার নাম পাওয়া যায়নি।

এর আগে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ইউনেস্কো কর্তৃক 'সেরা প্রধানমন্ত্রী' ঘোষণা সংক্রান্ত একটি ভুয়া খবর এএফপি খণ্ডন করেছিল।