এই ছবিগুলো লন্ডন টাওয়ারের প্রত্যাখ্যাত ডিজাইনের, আইফেল টাওয়ারের নয়

কপিরাইট এএফপি ২০১৭-২০২২। সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত।
 

ফেসবুকে কয়েকটি উঁচু স্থাপনার ডিজাইনের একটি ছবি শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে এগুলো ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে অবস্থিত আইফেল টাওয়ারের প্রত্যাখ্যাত ডিজাইনের ছবি। দাবিটি অসত্য। যুক্তরাজ্য ভিত্তিক একটি আর্টস জার্নালে প্রকাশিত ছবিগুলো উনবিংশ শতাব্দীতে লন্ডন টাওয়ার নামে একটি স্থাপনার জন্য জমা দেয়া ডিজাইনের। জার্নালটির তথ্য অনুযায়ী, ডিজাইনগুলোর একটি গ্রহণও করা হয়েছিল, কিন্তু নির্মাণ কাজ শুরু পর বিংশ শতাব্দীর শুরুর দিকে তা ভেঙ্গে দেয়া হয়।

২০২০ সালের ১ সেপ্টেম্বর একটি ফেসবুক পোস্টে ছবিটি শেয়ার করা হয়।

পোস্টটির বাংলা ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “এগুলো আইফেল টাওয়ার হতে পারতো, কিন্তু এই ডিজাইন গুলো রিজেক্ট করে দেন ইঞ্জিনিয়ার।”

( Mohammad MAZED)

  

ছবিটিতে আইফেল টাওয়ারের মতো দেখতে ১৪ টি টাওয়ারের ডিজাইন রয়েছে।

স্থপতি গুস্তাভ আইফেলের ডিজাইনে ১৮৮৭ সালে আইফেল টাওয়ারের নির্মাণ কাজ শুরু হয় এবং ২২ মাসের মধ্যে তা শেষ হয়। 

একইরকম দাবি সহকারে ফেসবুকে এখানেএখানে শেয়ার করা হয়। 

দাবিটি অসত্য।

লন্ডন টাওয়ার ডিজাইন

ফিনল্যান্ড ভিত্তিক প্রোডাক্ট সিকিউরিটি প্রফেশনাল জেন আলবার্গ গত ১৪ আগস্ট তার @হোক্সআই নামের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে লিখেন যে, এগুলো উনবিংশ শতাব্দীর 'দ্য গ্রেট টাওয়ার অব লন্ডন' এর ডিজাইনের ছবি।

তিনি ২০১২ সালের জুলাই মাসে প্রকাশিত দ্য পাবলিক ডোমেইন রিভিউ নামক একটি যুক্তরাজ্য ভিত্তিক অনলাইন আর্টস জার্নালের লিঙ্ক শেয়ার করেন।

প্রতিবেদনটিতে ছবিগুলোর ক্যাপশনে গেটি ইমেজেস ও আমেরিকান লাইব্রেরিজ এর ফটো ক্রেডিট দেয়া হয়েছে।

ক্যাপশনটিতে লেখা রয়েছে, “দ্য গ্রেট টাওয়ার ফর লন্ডনের ৬৮ টি প্রতিযোগিতামূলক ডিজাইনের বর্ণনাসহ ক্যাটালগ।”

নীচে জার্নালটিতে প্রকাশিত প্রথম ডিজাইনের একটি স্ক্রিনশট দেওয়া হলো: 

জার্নালের তথ্য মতে, আইফেল টাওয়ারের চেয়ে উঁচু একটি স্থাপনা নির্মাণের জন্য ১৮৯০ সালে ব্রিটেনে আয়োজিত এক স্থাপত্যশিল্প বিষয়ক প্রতিযোগিতায় ৬৮টি ডিজাইন জমা পড়ে।

এসব ডিজাইনের মধ্যে ৩৭ নম্বরে জমা হওয়া ডিজাইনটি বিজয়ী হয় এবং ১৮৯২ সালে সেটির নির্মাণকাজ শুরু হয়। কিন্তু ৪৭ মিটার পর্যন্ত কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান দেউলিয়া হয়ে যাওয়ায় নির্মাণ কাজ থেমে যায়।

জার্নালের তথ্য মতে, এরপর বিংশ শতাব্দীর শুরুতে টাওয়ারটি ভেঙ্গে ফেলা হয়।

নীচে বিজয়ী ডিজাইনের ছবি সম্বলিত জার্নালের একটি পৃষ্ঠার স্ক্রিনশট তুলে দেয়া হল:

  

নিউইয়র্ক ভিত্তিক স্থাপত্য প্রকৌশলী ক্রিস্টোফার জেমস বোথাম কর্তৃক লন্ডন টাওয়ারের প্রত্যাখ্যাত ডিজাইনগুলোর ওপর ২০২১ সালের ২ ফেব্রুয়ারি প্রকাশিত এই লেখাতে ভাইরাল হওয়া ছবিগুলো পাওয়া গেছে।

তিনি এএফপিকে বলেন, স্যার এডওয়ার্ড ওয়াটকিনের তত্ত্বাবধানে আংশিক কাজ হওয়া টাওয়ারটিকে উত্তর লন্ডনের ওয়েম্বলি পার্কে ৩৫৮ মিটার উঁচু পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা ছিল।

তিনি আরও বলেন, “এটা খুবই মজার বিষয় যে, টাওয়ারটি ডিজাইন করা হয়েছিল আইফেল টাওয়ারের উচ্চতাকে ছাপিয়ে যাওয়ার জন্য। কিন্তু সেটা আর কখনো হয়ে ওঠেনি বরং নির্মিত অংশটুকু ভেঙ্গে দেয়া হয়েছিল।”

এর আগে এএফপি আইফেল টাওয়ার নির্মাণের সময় ৩০০ কর্মী মারা যাওয়া সংক্রান্ত ফরাসি ভাষায় লেখা ফেসবুক পোস্টের দাবি খণ্ডন করেছে।