( AFP / JOEL SAGET)

চিনি পরিত্যাগ ও লেবুর রস মিশ্রিত গরম পানি পানে ক্যান্সার নিরাময় হয় না

কপিরাইট এএফপি ২০১৭-২০২২। সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত।

ফেসবুকে একটি বার্তা হাজার হাজার বার শেয়ার করা হচ্ছে যেখানে দাবি করা হয়েছে, চিনি খাওয়া ছেড়ে দিয়ে তিন মাস ধরে খালি পেটে লেবুর রস মিশ্রিত গরম পানি পান করলে ক্যান্সার নিরাময় হয়ে যায়। দাবিটি অসত্য। অসংখ্য চিকিৎসক এবং বৈজ্ঞানিক গবেষণা বলছে, চিনি বিহীন খাবার, লেবুর রস মিশ্রিত গরম পানি বা অর্গানিক নারিকেল তেল সেবনে ক্যান্সার নিরাময় হয় না।

গত ৪ জুলাই ২০২২ তারিখে বার্তাটি ফেসবুকে এখানে পোস্ট করা হয়েছে।

ফেসবুক পোস্টটিতে বলা হয়েছে: ক্যান্সার সম্পর্কে সচেতনতাঃ ওশ স্টেট মেডিকেল ইউনিভার্সিটি, মস্কো, রাশিয়ার ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ ডা. গুপ্তপ্রসাদ রেড্ডি (বি ভি) বলেছেন, ক্যান্সার কোনো মরণব্যাধি নয়, কিন্তু মানুষ এই রোগে মারা যায় শুধুমাত্র উদাসীনতার কারণে। তার মতে, মাত্র দুটি উপায় অনুসরণ করলেই উধাও হবে ক্যান্সার।"

"উপায়গুলো হচ্ছে: ১. প্রথমেই সব ধরনের সুগার বা চিনি খাওয়া ছেড়ে দিন। কেননা, শরীরে চিনি না পেলে ক্যান্সার সেলগুলো এমনিতেই বা প্রাকৃতিকভাবেই বিনাশ হয়ে যাবে। ২. এরপর এক গ্লাস গরম জলে একটি লেবু চিপে মিশিয়ে নিন। টানা তিন মাস সকালে খাবারের আগে খালি পেটে এই লেবু মিশ্রিত গরম জল পান করুন। উধাও হয়ে যাবে ক্যান্সার।"

পোস্টে আরও বলা হয়েছে: "মেরিল্যান্ড কলেজ অব মেডিসিন- এর একটি গবেষণায় বলা হয়েছে, কেমোথেরাপির চেয়ে এটি হাজার গুণ ভাল।
৩. প্রতিদিন সকালে ও রাতে তিন চা চামচ অর্গানিক নারিকেল তেল খান, ক্যান্সার সেরে যাবে। চিনি পরিহারের পর নিচের দুটি থেরাপির যেকোনো একটি গ্রহণ করুন। ক্যান্সার আপনাকে ঘায়েল করতে পারবে না। তবে অবহেলা বা উদাসীনতার কোনো অজুহাত নেই। উল্লেখ্য, ক্যান্সার সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করতে ডা. গুপ্তপ্রসাদ গত পাঁচ বছর ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন মাধ্যমে এই তথ্যটি প্রচার করছেন।"

একইরকম পোস্ট ফেসবুকে বিগত কয়েক বছর ধরে বিভিন্ন ভাষায় ছড়িয়েছে। বাংলায় এরকম আরও দুটি পোস্ট দেখুন এখানেএখানে

একই বার্তা থাই ভাষায় এখানে, ইংরেজিতে এখানে ও ফরাসি ভাষায় এখানে পোস্ট করা হয়েছে।

কিন্তু দাবিগুলো অসত্য।

চিনি বিহীন ডায়েট

এএফপিকে একাধিক চিকিৎসক বলেছেন, 'চিনি বিহীন খাবার প্রকৃতিগতভাবে ক্যান্সার সেল ধ্বংস করে' এমন দাবি অসত্য। বৈজ্ঞানিক গবেষণায় দেখা গেছে, স্বাভাবিক ও সুস্থ সেলেরও শক্তির জন্য চিনি প্রয়োজন।

ব্যাংককের ফাইথাই হাসপাতালের ক্যন্সার বিশেষজ্ঞ ডাক্তার পুনলার্ট তানিয়াকুল ২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে এএফপির সাথে আলাপকালে চিনি বিহীন ডায়েটের বিষয়ে সতর্ক করেছেন। তিনি বলেন, "যেহেতু মানব শরীরের জন্য চিনি (সুগার) একটি প্রয়োজনীয় উপাদান তাই খাবারের তালিকা থেকে চিনি একদম বাদ দিয়ে দেয়া মোটেও ভাল কিছু নয়। শরীরে যদি কোনো চিনি না থাকে তাহলে শরীরের কোষগুলো বাঁচতে পারবে না এবং অকেজো হয়ে যাবে।"

তবে তিনি এটাও বলেছেন, "অতিরিক্ত চিনি খেলে ক্যান্সারের শঙ্কা বেড়ে যায়।"

যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক ন্যাশনাল লাইব্রেরি অব মেডিসিনে প্রকাশিত এই রিপোর্ট মতে, গ্লোকুজ বেশিরভাগ সেলের শক্তির প্রধান উৎস।

রিপোর্টে বলা হয়েছে: "বেশিরভাগ সেলের শক্তির প্রধান উৎস হলো গ্লোকুজ এবং অনেক প্রাণরাসায়নিক প্রতিক্রিয়ার গুরুত্বপূর্ণ ভিত্তি। গ্লোকুজ প্রতিটি শারিরীক সেলের জন্য যেমন প্রয়োজনীয়, তেমনই গ্লোকুজ ট্রান্সপোর্টারগুলোও।"

ব্যাংককের ভেজথানি হাসপাতালের ডাক্তার ইসারা আনংচানিয়ার লেখা "রোগীদের অপেক্ষাকৃত ভাল জীবনের জন্য ক্যান্সার নিরাময়ের কার্যকর পদ্ধতি" শিরোনামের এই রিপোর্টটিতে ক্যান্সার প্রতিরোধে চিহি বিহীন ডায়েটের কথা বলা হয়নি।

যুক্তরাজ্য ভিত্তিক ক্যান্সার বিষয়ক দাতব্য প্রতিষ্ঠান ''ক্যান্সার রিসার্চ ইউক' এর প্রকাশিত এই রিপোর্টে বলা হয়েছে, চিনি বিহীন ডায়েট ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমিয়ে দেয় বা ক্যান্সার ধরা পড়ার পর এই ধরনের ডায়েট রোগীর বাঁচার সম্ভাবনা বৃদ্ধি করে এমন দাবির পক্ষে কোনো প্রমাণ নেই।

লেবর রস মিশ্রিত পানি

২০১৯ সালে একই ধরনের বার্তা অনলাইনে ছড়ানোর প্রেক্ষিতে জনস্বাস্থ্যের একজন অধ্যাপক এএফপি'কে বলেছেন, পানি গরম বা ঠাণ্ডা হোক তার কোনো 'রোগ সারানোর ক্ষমতা নেই'।

"পানি জীবনের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু অবশ্যই রোগ সারিয়ে তোলার কোনো ক্ষমতা এটির নেই", বলেছেন প্যারিস স্যাকলে ইউনিভার্সিটির জনস্বাস্থ্যের অধ্যাপক ও ফরাসি গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইনসার্ম এর সেন্টার ফর রিসার্চ ইন এপিডেমিওলোজি এন্ড পপুলেশন হেলথ এর পরিচালক ব্রুনো ফ্যালিসার্ড।

তিনি আরও বলেন, "পানি গরম হোক বা ঠাণ্ডা সেটা কোনো ব্যাপার না। এটিতে রোগ সারানোর ক্ষমতা নাই আবার এটি ক্ষতিকরও না। শূন্য থেকে ৪০ ডিগ্রি পর্যন্ত তাপমাত্রার পানি মানবশরীর সহ্য করতে পারে।"

"রোগ সারাতে গরম পানির এমন উপকারিতা বর্ণনা করে এমন কোনো বৈজ্ঞানিক গবেষণা নেই। এবং গরম পানির এমন থেরাপির পেছনের যে যুক্তি তাও হাস্যকর", বলে অভিহিত করেছেন ব্রুনো।

প্যারিসের সেন্ট লুই হাসপাতালের ব্লাড ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক নিকোলাস বয়সেল এএফপিকে বলেছেন, "গরম পানি, লেবু বা চিনি বিহীন খাবার এসবের কোনোটির মধ্যে ক্যান্সারনিরোধক কোনো কার্যক্রমের উপস্থিতির প্রমাণ পাওয়া যায়নি।"

রহস্যজনক ডাক্তার

ফেসবুক বার্তাটি "ডা. গুপ্তপ্রসাদ রেড্ডি (বি ভি)" নামে একজন কথিত চিকিৎসকের নামে ছড়ানো হয়েছে, যাকে "ওশ স্টেট মেডিকেল ইউনিভার্সিটি, মস্কো, রাশিয়ার ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ" হিসেবে পরিচয় দেয়া হয়েছে।

আবার কিছু পোস্টে (২০১৯ সালের এই পোস্টটি) বিশেষজ্ঞের নাম লেখা হয়েছে "গুরুপ্রসাদ রেড্ডি"।

উভয় ক্ষেত্রেই "ওশ স্টেট মেডিকেল ইউনিভার্সিটি, মস্কো" এর কথা বলা হয়েছে। গুগলে অনুসন্ধান করে Osh State University নামে কিরগিজিস্তানে একটি প্রতিষ্ঠান পাওয়া গেছে, ভাইরাল পোস্টের তথ্য অনুযায়ী রাশিয়ার মস্কতো সেটির অবস্থান নয়।

এবং ইংরেজিতে 'ডা. গুপ্ত' 'ডা. গুপ্তপ্রসাদ' এবং ডা. গুরুপ্রসাদ' এসব নামে সার্চ করে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো চিকিৎসকের সন্ধান বা তাদের কোনো একাডেমিক কার্যক্রমের সন্ধান পাওয়া যায়নি।

“Guruprasad Reddy + cancer” এবং “Guptaprasad Reddy + cancer” লিখে সার্চ করলে আফ্রিকা চেকসহ বিভিন্ন ফ্যাক্ট চেকিং প্রতিষ্ঠানের প্রতিবেদন হাজির হয় যেগুলোতে দেখানো হয়েছে এই নামের কোনো চিকিৎসকের সন্ধান পাওয়া যায়নি।