( AFP / KIRILL KUDRYAVTSEV)

নিউইয়র্ক সাবওয়েতে পুরনো হামলার ভিডিওকে ২০২২ সালে বাংলাদেশি ছাত্রী হত্যার দৃশ্য বলে প্রচার

কপিরাইট এএফপি ২০১৭-২০২২। সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত।

একটি সাবওয়ে স্টেশনে এক নারীর ওপর হামলার একটি ভিডিওকে ফেসবুকে পোস্ট করে দাবি করা হচ্ছে এতে ২০২২ সালের মে মাসে নিউইয়র্কে ট্রেনের নিচে পড়ে এক বাংলাদেশি ছাত্রীর মৃত্যুর দৃশ্য দেখা যাচ্ছে। কিন্তু ভিডিওটি প্রকৃতপক্ষে বাংলাদেশি ছাত্রীর মৃত্যুর ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট নয়। নিউইয়র্ক পুলিশ গত ২৩ মে ২০২২ তারিখে এএফফিকে জানিয়েছে ছাত্রীর মৃত্যুর কারণ কী তা এখনও তদন্তাধীন।

গত ১৩ মে ২০২২ তারিখে ফেসবুকে এখানে ভিডিওটি পোস্ট করে ক্যাপশন দেয়া হয়েছে: "কলেজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে নিউইয়র্কের ব্রুকলিন হান্টার কলেজের বাংলাদেশী ছাত্রী জিনাত হোসেন (২৪) সাবওয়ে ট্রেন লাইনে মারা গেছেন।"

ভিডিওতে দেখা যায়, একদল পুরুষ নিজেদের মধ্যে হাতাহাতি করছেন এবং একপর্যায়ে তাদের মধ্যে থেকে একজন পাশে দাঁড়িয়ে থাকা এক নারীকে নিকটবর্তী অপেক্ষমান ট্রেনের গায়ে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিচ্ছেন।

Warning

জিনাত হোসেন নিউইয়র্কের হান্টার কলেজের একজন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী যার লাশ গত ১১ মে স্থানীয় একটি সাবওয়ে ট্রেন লাইন থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। বাংলাদেশি সংবাদমাধ্যম এখানে এখানে তার মৃত্যুর খবর প্রকাশিত হয়েছে।

গত ২৩ মে ২০২২ তারিখে নিউইয়র্ক পুলিশ বিভাগের একজন মুখপাত্র এএফপিকে জানিয়েছেন যে, জিনাতের মৃত্যুর কারণ এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

ফেসবুকে ছড়ানো ভিডিওটি বিভিন্ন পোস্টে ২০ হাজার বারের বেশি ভিউ হয়েছে। এছাড়া ভিডিওর স্ক্রিনশট জিনাতের মত্যুর খবরের সাথে বাংলাদেশি সংবাদমাধ্যমে এখানে এখানে প্রকাশিত হয়েছে।

২০১৯ সালের হামলা

প্রকৃতপক্ষে ভিডিওটিতে ২০১৯ সালে নিউইয়র্ক সাবওয়ে স্টেশনে ভিন্ন একটি হামলার দৃশ্য দেখা যাচ্ছে।

কীওয়ার্ড এবং রিভার্স ইমেজ সার্চ করে ভিডিওটি এই ২০১৯ সালের ২৩ অক্টোবরের এই টুইটে পাওয়া গেছে।

নিউইয়র্ক পোস্ট পত্রিকার ২০১৯ সালের ২৪ অক্টোবর তারিখের "দেখুন: ব্রুকলিনে সাবওয়ে ট্রেইনের নিচে নারীকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিচ্ছে এক নিষ্ঠুর" শিরোনামের রিপোর্টে ভিডিওটি প্রকাশিত হয়েছিল।

রিপোর্টে বলা হয়েছে ঘটনাটি ঘটেছে ব্রুকলিনের ডিক্ল্যাব এভিনিউ সাবওয়ে স্টেশনে।

পরের আরেক রিপোর্টে নিউইয়র্ক পোস্ট জানায়, এই ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তিটি আগেও একাধিকবার সাবওয়েতে অপরাধ করার কারণে গ্রেফতার হয়েছিলেন।

নিচে বিভ্রান্তিকর ফেসবুক পোস্টের ভিডিও এবং ২০১৯ সালের টুইটে প্রকাশিত ভিডিও তুলনামূলক স্ক্রিনশট দেয়া হল:

Warning

নিউইয়র্ক ডেইলি নিউজ এবং গোথামিস্ট সহ আরও বেশ কয়েকটি স্থানীয় সংবাদমাধ্যমেও ২০১৯ সালের হামলার খবরের সাথে এই ভিডিওর স্ক্রিনশট ব্যবহৃত হয়েছে।

নিউইয়র্ক পুলিশের একজন মুখপাত্র এএফপিকে জানিয়েছেন, ভিডিওটি ভুল প্রেক্ষিতে ছড়িয়েছে এবং এটি কোনভাবেই জিনাত হোসেনের মৃত্যুর ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট নয়।

"২০১৯ সালের ২৩ অক্টোবর সাবওয়ের ঘটনা আর উপরের বর্ণিত ব্যক্তি (জিনাত হোসেন) নিহত হওয়ার ঘটনা এক নয়", বলেন নিউইয়র্ক পুলিশের মুখপাত্র।

তবে ২০১৯ সালের ঘটনার ভিডিওতে দৃশ্যমান ভুক্তভোগী নারীর অবস্থা সম্পর্কে পরে জানতে চাইলে উত্তর দেননি ওই মুখপাত্র।