ভিডিওটি সংযুক্ত আরব আমিরাতে নির্মিতব্য একট মন্দিরের ত্রিমাত্রিক নকশার

কপিরাইট এএফপি ২০১৭-২০২২। সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত।

ফেসবুক ও ইউটিউবে একটি ভিডিও শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে ভিডিওটিতে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ সৌদি আরবে স্থাপিত প্রথম হিন্দু মন্দির দেখা যাচ্ছে। ক্লিপটির সাথে ছড়ানো দাবিটি বিভ্রান্তিকর; এটি মূলত সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবিতে নির্মিতব্য একটি মন্দিরের ত্রিমাত্রিক নকশার দৃশ্য।

২৭ সেকেন্ড দীর্ঘ ভিডিও ক্লিপটি গত ২৯ মার্চ ফেসবুকে এখানে শেয়ার করা হয়। 

( Mohammad MAZED)

পোস্টটির ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “সৌদি আরবে প্রথম হিন্দু মন্দির জয় শ্রীরাম।”

ভিডিও ক্লিপটিতেও “সৌদি আরবের প্রথম হিন্দু মন্দির” লেখা রয়েছে, তবে বন্ধনীতে “আবুধাবি”ও লেখা রয়েছে। 

ভিডিওটি ফেসবুকে এখানে এখানে একইরকম দাবিসহকারে শেয়ার করা হয়। 

বাংলা মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ বাংলাদেশের রাষ্ট্রভাষা এবং পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের কয়েকটি রাজ্যেও ভাষাটি প্রচলিত আছে। 

দাবিটি বিভ্রান্তিকর। 

ভিডিও ক্লিপটিতে মূলত আবুধাবিতে নির্মিতব্য বোচাসন্যাসী অক্ষর পুরুষোত্তম স্বামীনারায়ন সংস্থা (বিএপিএস) হিন্দু মন্দিরের একটি কম্পিউটার নির্মিত নকশার দৃশ্য। 

৩০ মিনিটি ৫ সেকেন্ড ব্যাপী মূল ভিডিওটি ২০১৯ সালের ২৩ এপ্রিল বিএপিএসের ভেরিফায়েড ইউটিউব চ্যানেল থেকে পোস্ট করা হয়। 

ভিডিওটির ক্যাপশনে লেখা রয়েছে, “২০ এপ্রিল ২০১৯ এ সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবিতে বিএপিএস হিন্দু মন্দিরের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠান।”

বিভ্রান্তিকর ফেসবুক পোস্টের ক্লিপটি এই ভিডিওর ১৭ মিনিট ৫১ সেকেন্ড থেকে দেখতে পাওয়া যায়। 

নীচে বিভ্রান্তিকর ফেসবুক পোস্টের ভিডিও (বামে) ও ইউটিউব ভিডিওর (ডানে) একটি তুলনামূলক স্ক্রিনশট দেওয়া হলো: 

বিএপিএস মন্দির কর্তৃপক্ষের একজন মুখপাত্র এএফপিকে বলেন, “এই ভিডিওটি আবুধাবিতে নির্মিতব্য বিএপিএস হিন্দু মন্দিরের একটি নকশা। আবুধাবিতে প্রস্তরনির্মিত প্রথম মন্দির এটি।”

২০২০ সালের ২০ নভেম্বর গালফ নিউজ নির্মাণ কাজের অগ্রগতি নিয়ে একটি ফটো প্রতিবেদন প্রকাশ করে। 

এই মুখপাত্রের মতে, মন্দিরটির নির্মান কাজ ২০২৪ সালের প্রথম এক চতুর্থাংশের মধ্যে শেষ হবে।