স্ক্রিনশটটি ২০২১ সালের ৫ জুন তারিখে ‘হাবিবুর রহমান‘ নামে একটি ফেসবুক প্রোফাইলের পোস্ট থেকে নেয়া হয়েছে

২০২০ সালে মেক্সিকো উপকূলে হারিকেন হান্নার তাণ্ডবের ভিডিওটি সেসময় খবরে এসেছিল

কপিরাইট এএফপি ২০১৭-২০২২। সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত।

বন্যার পানিতে গবাদি পশু ভেসে যাওয়ার একটি ভিডিও সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে বিভিন্ন পোস্টের সাথে এক লাখেরও বেশিবার শেয়ার হয়েছে; যাতে দাবি করা হচ্ছে যে, ভিডিও ক্লিপটি ভারতের উড়িষ্যা রাজ্যে আঘাত হানা ঘূর্ণিঝড়ের। দাবিটি অসত্য; ২০২০ সালের জুলাইয়ে মেক্সিকোয় আঘাত হানা হারিকেন হান্নার খবরের সাথে এই ভিডিওটি সেসময় অনলাইনে পাওয়া যায়।

গত ২৭ মে ফেসবুকে এখানে ভিডিওটি পোস্ট করা হয় যা ৯৫ হাজার বার শেয়ার হয়েছে। 

একটি পোস্টের ক্যাপশনে লেখা হয়েছে: “ভারতের উড়িষ্যা উপকূলে গুন্নিজড়ের তান্ডবে হাজার হাজার  ঘর বাড়ি গরু ছাগল মিনিটে তলিয়ে যাচ্ছে  হে আল্লাহ তুমি সকল কে হেফাজত করুন আমিন।”

যদিও কোন ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবের ভিডিও এটি তা উল্লেখ করা হয়নি। সম্প্রতি গত ২৭ মে বাংলাদেশ ও ভারতের উড়িষ্যা রাজ্যের উপকূলে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস আঘাত হানে। এএফপির এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন দেখুন এখানে। 

একই ভিডিও ফেসবুকে এখানে, এখানে এখানে পোস্ট করা হয়েছে। 

দাবিটি অসত্য।

ভিডিওটির কী-ফ্রেম দিয়ে রিভার্স ইমেজ সার্চ চালিয়ে দেখা যায় যে ২০২০ সালের ২৮ জুলাই মেক্সিকান টিভি নেটওয়ার্ক ইমেজেন টেলিভিশনের ইউটিউবে এই ভিডিওটি প্রকাশিত হয়।

ইমেজেন টেলিভিশনের ভিডিওটির স্প্যানিশ ভাষার শিরোনামের বাংলা অর্থ এরকম: 'নয়ারিতে জাকুয়ালপান নদীতে বন্যায় ভেসে যাচ্ছে গবাদি পশু'।

ভিডিওটির বর্ণনায় লেখা আছে: 'ঘূর্ণিঝড় হান্নার আঘাতের পর নয়ারিতে জাকুয়ালপান নদীতে অতিরিক্ত পানিতে গবাদি পশুর ভেসে যাওয়ার দৃশ্য এগুলো।'

ভাইরাল হওয়া ফেসবুক পোস্টের ভিডিও ও ইউটিউবে পাওয়া ভিডিওটির স্ক্রিনশটের তুলনামূলক দৃশ্য দেখুন নীচে-

হারিকেন হান্না ছিল ২০২০ সালের প্রথম আটলান্টিক হারিকেন যা ২০২০ সালের ২৫ জুলাই আমেরিকার টেক্সাস অঙ্গরাজ্য এবং মেক্সিকোর উত্তর পূর্বাঞ্চলে আঘাত হানে। এ সংক্রান্ত এএফপির প্রতিবেদন দেখুন এখানে

হারিকেন হান্নার প্রভাবে সৃষ্ট জলোচ্ছাসে ভেসে যাওয়া গবাদি পশু নিয়ে মেক্সিকান সংবাদমাধ্যম 'লা হর্নাদা'র প্রতিবেদনেও ভিডিওটি পাওয়া যায়।

এর আগে ভিডিওটি চীনের সামাজিম মাধ্যমে চীনের একটি ঘটনার বলে ছড়ানো হলে বার্তা সংস্থা এএফপি ফ্যাক্টচেক এ নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে। দেখুন এখানে