বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রান্নার এই ছবিটি ২০১৩ সালে তার ছেলের জন্মদিনে তোলা

কপিরাইট এএফপি ২০১৭-২০২২। সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত।

ফেসবুকে একটি ছবি বিভিন্ন আইডি থেকে পোস্ট করে দাবি করা হচ্ছে যে, এটি ২০২১ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫ তম জন্মদিন উপলক্ষে তার রান্নার ছবি। কিন্তু ছবিটি আসলে ভুল প্রেক্ষিতে ছড়িয়েছে। এই ছবিতে দেখা যাচ্ছে শেখ হাসিনা তার ছেলের জন্মদিন উপলক্ষে ২০১৩ সালে রান্নাবান্না করছেন।

গত ৩ অক্টোবর ফেসবুকে এখানে উল্লিখিত দাবি সহকারে ছবিটি পোস্ট করা হয়।

বাংলা ভাষায় পোস্টটির ক্যাপশনে লেখা রয়েছে: ''মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা ৭৫ তম জন্মদিনে রান্না করছেন।''

ছবিতে দেখা যাচ্ছে, শেখ হাসিনা হাতে কাঠের একটি চামচ দিয়ে চুলার উপর একটি পাত্রে কিছু নাড়াচাড়া করছেন।

বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমান এবং শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের পাঁচ সন্তানের মধ্যে হাসিনা সবার বড়। 

এ বছর তিনি তার ৭৫তম জন্মদিন পালন করছেন। এ উপলক্ষে হওয়া বিভিন্ন আয়োজনের খবর বাংলাদেশের মিডিয়ায় ব্যাপকভাবে প্রচারিত হয়েছে।

ছবিটি একই রকম দাবি সহকারে ফেসবুকে এখানে, এখানেএখানে পোস্ট করা হয়েছে।

পোস্টগুলো সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারীদের কারো কারো প্রশংসা কুড়িয়েছে। কেউ কেউ শেখ হাসিনাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী ছবিটির নিচে মন্তব্য করেছেন: ''আমরা এমন এক নেত্রী পেয়েছি যিনি সবকিছুতে অলরাউন্ডার।''

কিন্তু ছবিটি ভুল প্রেক্ষিতে শেয়ার করা হয়েছে।

গুগল রিভার্স ইমেজ সার্চে পাওয়া গেছে, এই ছবিটি মূলত ২০১৩ সালের জুলাই মাসে প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়ের ফেসবুক পেইজে প্রথম প্রকাশ করা হয়।

ক্যাপশনে লেখা হয়েছে: ''সবার জন্য একটা বিশেষ চমক। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমার জন্য মোরগ পোলাও রান্না করছেন! তার রান্না আমার স্বাদ নেয়া পোলাও এর মধ্যে সর্বোত্তম।''

ঢাকা ট্রিবিউনসহ বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যমে শেখ হাসিনা কর্তৃক তার ছেলের ৪২তম জন্মদিন পালন সংক্রান্ত প্রতিবেদনে ছবিটি প্রকাশিত হয়।

ঢাকা ট্রিবিউনের প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে: ''প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়ের জন্মদিনে নিজে মোরগ পোলাও রান্না করেছেন।''

''জয়ের ৪২তম জন্মদিন মা শেখ হাসিনা, স্ত্রী ক্রিস্টিন ওভারমেয়ার, মেয়ে সুফিয়া এবং বোন সায়মা ওয়াজেদ পুতুল ও তার সন্তানদের উপস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় গণভবনে ঘরোয়া পরিসরে উদযাপিত হয়েছে।''