এই ভিডিওটি বাংলাদেশের নয়, ভারতের এক মন্দিরে আগুনের ঘটনার

কপিরাইট এএফপি ২০১৭-২০২২। সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত।
 

ফেসবুকে একটি ভিডিও ছড়িয়েছে যেখানে দেখা যাচ্ছে কোন একটি স্থানে কিছু স্থাপনায় আগুন জ্বলছে। ভিডিওটি শেয়ার করে বেশ কিছু ফেসবুক পোস্টে দাবি করা হচ্ছে, এটা বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলীয় রংপুর জেলায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়িঘর এবং মন্দিরে হামলার দৃশ্য এটি। রংপুরে গত ১৭ অক্টোবর তারিখে বেশ কিছু হিন্দু বাড়িঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়ার একদিন পর ভিডিওটি ফেসবুকে ছড়ায়। কিন্তু এটি ভুল প্রেক্ষিতে ছড়ানো হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে ভিডিওটি বাংলাদেশের নয়, বরং ভারতের ত্রিপুরা অঞ্চলে গত ১৩ অক্টোবর একটি পুজা মণ্ডপে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার।

গত ১৮ অক্টোবর ভিডিওটি ফেসবুকে এখানে শেয়ার করা হয়েছে।

( Qadaruddin SHISHIR)

  

বাংলায় পোস্টটির ক্যাপশনে লেখা হয়েছে: "রংপুর বাংলাদেশে ভয়াবহ অবস্থা। হিন্দুদের বাড়িঘর ও মন্দির জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে।"

গত ১৩ অক্টোবর কুমিল্লায় দুর্গা পুজা চলাকালে কুরআনের একটি কপি প্রতিমার কোলে রাখার ফুটেজ সামাজিক মাধ্যমে ছড়ানোর পর বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে  ধর্মীয় সংখ্যালঘুরদের লক্ষ্য করে সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে।

১৮ অক্টোবর এক প্রতিবেদনে ঢাকা ট্রিবিউন লিখেছে: "রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার একটি গ্রামে সামাজিক মাধ্যমে ধর্ম অবমাননা করে পোস্ট দেয়ার অভিযোগ এনে একদল লোক হিন্দুদের বাড়িঘরে হামলা করেছে।"

ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি এখানে, এখানে এবং এখানে পাওয়া যাবে।

একই ফুটেজ ১৭ অক্টোবর বাংলাদেশের বেসরকারি টিভি চ্যানেল সময় টিভি তাদের রংপুরে হামলা সংক্রান্ত খবরে সম্প্রচার করেছে। একই ফুটেজের স্ক্রিনশট সময়টিভি এবং ডেইলি স্টার তাদের প্রতিবেদনে ব্যবহার করেছে।

  

কিছু ভারতীয় ওয়েবসাইটও রংপুরের হামলার খবরের সাথে এই ফুটেজের স্ক্রিনশট ব্যবহার করেছে। দেখুন এখানেএখানে

কিন্তু প্রকৃতপক্ষে ফুটেজটি এসব ক্ষেত্রে ভুল প্রেক্ষিতে ব্যবহার করা হয়েছে।

কীওয়ার্ড এবং রিভার্স ইমেজ সার্চ করে দেখা গেছে, একই ভিডিও গত ১৩ অক্টোবর (রংপুরের ঘটনার চারদিন আগে) বেশ কিছু ফেসবুক পোস্টে এখানেএখানে প্রকাশিত হয়েছিল। ওইসব পোস্টে ভিডিওটিকে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের ধলাই জেলার কমলপুরের একটি দুর্গা পুজা মণ্ডপে অগ্নিকাণ্ডের বলা দাবি করা হয়।

নিচে বিভ্রান্তিকর ফেসবুক পোস্ট এবং ত্রিপুরা ভিত্তিক ফেসবুক পেইজের ভিডিওর তুলনামূলক স্ক্রিনশট দেয়া হল:

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমএইট ১৪ অক্টোবর ত্রিপুরার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার খবর প্রকাশ করে "ত্রিপুরায় অগ্নিকাণ্ডে পুড়লো পুজা মণ্ডপ ও চার দোকান" শিরোনামে।

নিচে বিভ্রান্তিকর ফেসবুক পেইজের ভিডিও এবং টাইমএইট এর প্রতিবেদনে ব্যবহার করা ঘটনার ছবির তুলনামূলক চিত্র তুলে ধরা হল:

( Qadaruddin SHISHIR)

এছাড়া PB24 News নামে ত্রিপুরা ভিত্তিক আরেকটি সংবাদমাধ্যম ওই অগ্নিকাণ্ডের একটি বিস্তারিত ফলোআপ প্রতিবেদন প্রচার করে। সেখানে পুড়ে যাওয়া ভবনের যে দৃশ্য দেখা যায় তা বিভ্রান্তিকরভাবে বাংলাদেশে ছড়ানো ভিডিওর জ্বলন্ত ভবনের সাথে হুবহু মিলে যায়।

PB24 News এর প্রতিবেদনে ঘটনাস্থলে একটি ব্যানারও দেখানো হয় যেখানে লেখা রয়েছে: "মরাছড়া বাজার দুর্গা মণ্ডপ পুজা কমিটি, মরাছড়া বাজার, কমলপুর, ধলাই, ত্রিপুরা।"

( Qadaruddin SHISHIR)