এটি অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় অ্যালিসিয়া মন্টানার ৮০০ মিটার দৌড়ে অংশগ্রহণের ছবি

কপিরাইট এএফপি ২০১৭-২০২২। সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত।

বেশকিছু ফেসবুক পোস্টে অ্যাথলেটিক ট্র্যাকে এক নারী অ্যাথলেটের দৌড়ানোর একটি ছবি শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে যে, তিনি ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা এবং দৌড় প্রতিযোগিতাটিতে তিনি বিজয়ী হয়েছেন। দাবিটি অসত্য; ৮০০ মিটার হিটে অন্তঃসত্ত্বা মার্কিন অ্যাথলেট অ্যালিসিয়া মন্টানার দৌড়ানোর এই ছবিটি ২০১৪ সালের এবং তিনি সবার শেষে দৌড় শেষ করেন। 

গত ১০ আগস্টের একটি ফেসবুকে এখানে পোস্টের ক্যাপশন ছিল: ''৫ মাসের প্রেগন্যান্ট !!জিতেছে ৪০০ মিটার দৌড়ে.!''

বিভ্রান্তিকর পোস্টের স্ক্রিনশটটি ১১ আগস্ট, ২০২১ তারিখে নেয়া

একই পোস্ট ফেসবুকে এখানেএখানে শেয়ার করা হয়।

তবে দাবিটি অসত্য।

গুগল রিভার্স ইমেজ সার্চে দেখা যায় এই ছবিটি ২০১৪ সালের ২৬ জুন এসোসিয়েটেড প্রেসের (এপি) ফটোগ্রাফার রিচ পেড্রোনসেলি তুলেছিলেন। 

এপি'র আর্কাইভে পাওয়া ছবির ক্যাপশনে লেখা আছে: '' ২০১৪ সালের ২৬ জুন ক্যালিফোর্নিয়ার স্যাক্রামেন্টোতে অনুষ্ঠিত আমেরিকার আউটডোর ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ড চ্যাম্পিয়নশীপে ৮০০ মিটার দৌড়ের কোয়ার্টার ফাইনালে ৩৪ সপ্তাহের অন্তঃসত্ত্বা অ্যালিসিয়া মন্টানা প্রতিযোগিতা করেন।’’

এপি'র আর্কাইভ থেকে ১২ আগস্ট, ২০২১ তারিখে স্ক্রিনশটটি নেয়া হয়েছে

এএফপি'র এই প্রতিবেদন অনুযায়ী, অলিম্পিকে অংশগ্রহণকারী ও পাঁচ বারের ন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন এই অ্যাথলেট ইউএসএ আউটডোর ট্র্যাক এবং ফিল্ড (ইউএসএটিএফ) চ্যাম্পিয়নশীপে সবার শেষে দৌড় শেষ করেন। 

অ্যালিসিয়া বলেন, তিনি দৌড়ে অংশগ্রহণ করেন কারণ তিনি দেখাতে চেয়েছেন যে, গর্ভধারণ করেও নারীরা ফিট থাকতে পারেন, এবং একইসাথে ক্যারিয়ার ও পরিবার সামলাতে পারেন।  

মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেল সিবিএস লস অ্যাঞ্জেলসকে অ্যালিসা মন্টানা বলেন, তিনি এবং তার স্বামী দু'জন মিলেই সেবছর বিরতির ফাঁকে সন্তান নেয়ার সিদ্ধান্ত নেন কারণ পরবর্তীতে তিনি বিশ্ব অ্যাথলেটিক চ্যাম্পিয়নশীপ এবং ২০১৬ সালের রিও অলিম্পিকে অংশ নেয়ার কথা ছিল।  

মন্টানা সিবিএস লস অ্যাঞ্জেলসকে বলেন, ''আমি জানি গর্ভধারণ এবং এসময় অনুশীলন করা নিয়ে গোঁড়ামি ও অজ্ঞতা আছে। কিন্তু সত্য হলো এসময় অনুশীলন মা ও শিশু দু'জনের জন্যই উপকারী।'' 

২০১৯ সালে ক্রীড়াসরঞ্জাম প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান নাইকির বিরুদ্ধে সন্তান নেয়ার জন্য যেসব নারী অ্যাথলেট বিরতি নেন তাদের প্রতি শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার সমালোচনা করে অ্যালিসিয়া আবারো খবরের শিরোনাম হয়েছিলেন। 

তিনি নিউইয়র্ক টাইমসে লিখেন, ‘কোন অ্যাথলেটি যদি কোন লক্ষ্যমাত্রা পূরণে ব্যর্থ হন সেক্ষেত্রে ব্র্যান্ডটি সেই অ্যাথলেটের স্পন্সরশীপে অর্থ যোগান কমিয়ে দেয়, এমনকি সন্তান জন্মদান, গর্ভধারণ অথবা মাতৃত্বকালীন ক্ষেত্রেও এটি ঘটে।’

পরবর্তীতে  ২০১৯ সালের আগস্টে নাইকি গর্ভধারণকালীন সময়ে ১৮ মাসের জন্য অ্যাথলেটদের বেতন-বোনাস দেয়ার নিশ্চয়তা দেয়।